ভারতের উন্নয়ন যাত্রায় বাংলাদেশ

ভারতের উন্নয়ন যাত্রায় বাংলাদেশ
‘কাঁটাতারে ঘেরা কেন, বন্ধু ভারত যদি বন হত মানুষ হত আরও হত নদী?’
বারবার জিজ্ঞাসা করেও এ সহজ প্রশ্নটির উত্তর আমরা এখনো পাচ্ছি না। উত্তর না পেলেও কাজ কিন্তু থেমে নেই।
১৫ মে ২০১৬ থেকে ‘ট্রানজিট’ নামে ভারতের পণ্যসামগ্রী বাংলাদেশের মধ্য দিয়ে আবার ভারতেই নেয়ার আনুষ্ঠানিক ব্যবস্থা শুরু হয়েছে। পৃথিবীতে এ রকম দৃষ্টান্ত পাওয়া কঠিন হলেও এর আগে বাংলাদেশ অনেকবার ‘শুভেচ্ছাস্বরূপ’, ‘মানবিক’ কারণে ভারতীয় পণ্য পরিবহনের অনুমতি দিয়েছে। তিতাস নদীতে আড়াআড়ি…
বিস্তারিত

বাজেটে সাধারণ মানুষ কতটা লাভবান হবে?

আজ ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপিত হচ্ছে। বাজেটের সময় হয়েছে—তা জনগণ বুঝতে পারে তাদের প্রাত্যহিক জীবনের তিক্ত অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে। বাজেটের সময় ঘনিয়ে এলেই জিনিসপত্রের দাম বাড়ার খবর আসতে থাকে, নতুন নতুন করের খবরে এই দাম বাড়ে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বাজেট শেষ করার তাড়াহুড়ায় অপচয় হয়, বাজার চাঙা হয়। অর্থবছরের শেষ মাস জুন থাকায় এই সময়ে বৃষ্টি হয়, খানাখন্দে ভরা শহরে পানি জমে, তাড়াহুড়া করে সব প্রকল্প শেষ করতে অপচয় ও দুর্নীতির…বিস্তারিত

বাঁধ, দখল ও ‘উন্নয়ন’ নদী খুনের তিন ধারা

বাঁধ, দখল ও ‘উন্নয়ন’ নদী খুনের তিন ধারাআজ ১৬ মে ফারাক্কা দিবস। ৪০ বছর আগে এই দিনে মওলানা ভাসানী ‘মরণ বাঁধ ফারাক্কা’-র বিরুদ্ধে এক বিশাল জনযাত্রা কর্মসূচি নিয়েছিলেন। ফারাক্কার অভিমুখে ডাকা লংমার্চে অসংখ্য মানুষ অংশ নিয়েছিলেন। ফারাক্কা বাঁধ দিয়ে ভারতের যে নদীবিধ্বংসী উন্নয়ন যাত্রা শুরু তা গত ৪০ বছরে এমনস্থানে পৌঁছেছে যে, বাংলাদেশের বৃহত্ নদী পদ্মা ও সম্পর্কিত অসংখ্য ছোট নদী খালবিলও এখন বিপর্যস্ত। ফারাক্কা বাঁধের কারণে পদ্মা নদীর বড় অংশ এখন শুকিয়ে গেছে। ভারসাম্যহীন পানি প্রবাহে…বিস্তারিত

সন্ত্রাস দমন, না সন্ত্রাস বপন?

বাংলাদেশ সফরে এসে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব আবারও বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথভাবে সন্ত্রাস দমনের কাজ করার অঙ্গীকার করেছেন। এর মধ্যে সন্ত্রাস দমনে ভারত যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আরও চুক্তি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এ বিষয়ে বাংলাদেশেরও চুক্তি আছে। পাকিস্তানও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সন্ত্রাস দমন কাজে নানা চুক্তি ও সমঝোতায় কাজ করছে। সম্প্রতি সৌদি আরব সন্ত্রাস দমনে জোট করেছে, তার মধ্যেও বাংলাদেশ আছে। রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে সবাই ‘সন্ত্রাস দমনে’ ঐক্যবদ্ধ, প্রশ্ন হল তাহলে সন্ত্রাস করছে কে? সন্ত্রাসী কারা?…বিস্তারিত

বাঁশখালীতে জোরজুলুম কেন?

বাঁশখালীতে জোরজুলুম কেন?গত ৪ এপ্রিল চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গণ্ডামারায় চারজন নিরীহ গ্রামবাসী নিহত হয়েছেন। এক মাস পার হলেও সরকারি প্রশাসন এর কোনো কূলকিনারা করার বা দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করার ব্যবস্থা করেনি। এ ব্যাপারে সরকার গঠিত তদন্ত কমিটির রিপোর্টও জনগণের কাছে বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়নি। সেদিনের ঘটনা নিয়ে অনেক বিভ্রান্তি ছড়ানো হয়েছে। কারা নিহত হয়েছিলেন তাঁদের নামও হয়তো দেশবাসী জানে না। কেননা, খুব কম সংবাদমাধ্যমেই তাঁদের কথা এসেছিল। সবার অবগতির জন্য এখানে নিহত ব্যক্তিদের নাম-পরিচয়…বিস্তারিত

জাতীয় ন্যূনতম মজুরি ও নিরাপত্তা চাই

জাতীয় ন্যূনতম মজুরি ও নিরাপত্তা চাই‘সবার জন্য প্রযোজ্য জাতীয় ন্যূনতম মজুরি এবং নিরাপদে কাজের অধিকার’—এই দাবি হওয়া উচিত আমাদের সবার। মে দিবসের সঙ্গে এই দাবি অবিচ্ছেদ্য। দেশের প্রতিটি নাগরিক কাজ করে নিরাপদে বাঁচার অধিকার নিয়েই জন্মগ্রহণ করে। একটি ন্যূনতম আয়সীমা নিশ্চিত করার দায়িত্ব সরকারের। জাতীয় ন্যূনতম মজুরি হচ্ছে ঘণ্টা, দিন, সপ্তাহ বা মাস ভিত্তিতে এ রকম মজুরি, যার নিচে দেশের কোথাও কোনো কাজে, কোনো মজুরি বা বেতন হতে পারবে না। যেকোনো কাজের ক্ষেত্রে এই শর্ত…বিস্তারিত

তনু থেকে পয়লা বৈশাখ

তনু থেকে পয়লা বৈশাখভাবতে অবাক লাগে, অপরাধীদের ধরা যাঁদের দায়িত্ব, তাঁরা দিনের পর দিন কী নির্লিপ্তভাবে বোকা বোকা চেহারায় হাসিমুখে বানানো কথা বলে যেতে পারেন। চোখেমুখে অপরাধী কোনো ভাব কি কখনো দেখা যায়? মুহূর্তের জন্য হয়তো আসতেও পারে। হাজার হলেও মানুষ তো! ত্বকী, সাগর-রুনি, অভিজিৎ, দীপন, তনু, সর্বশেষ নাজিম, বহুল আলোচিত হলেও ভণিতা চলে নির্দ্বিধায়। আর যেসব খুনের ঘটনা বড়জোর এক বা দুই দিন পত্রিকার পাতায় আসে বা কখনোই আসে না, সে সব…বিস্তারিত

Scrap projects of destruction

Scrap projects of destructionI first visited Bashkhali in 1991, immediately after a deadly cyclone devastated the area. I could not walk without touching a dead body or its parts; I could not see even an inch of area which had not been destroyed by the natural disaster. In this coastal area, people live on and struggle with the Bay of Bengal; they live with its resources and also with its rage. With the…বিস্তারিত

বাঁশখালী হত্যাযজ্ঞ: উন্নয়ন নামে দখল, প্রতারণা আর জবরদস্তির নমুনা

চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপকূলীয় এলাকা গন্ডামারা বড়ঘোনায় ৭ হাজারেরও বেশি বসতবাড়ি, কৃষিজমি, লবণ চাষের জমি ও চিংড়ি ঘের সমৃদ্ধ অঞ্চলে সরকার কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার জন্য অনুমতি দিয়েছে সরকার ঘনিষ্ঠ দেশের দ্রুত বিকাশমান ব্যবসায়ী গোষ্ঠী এস আলম গ্রুপকে। এর সাথে যুক্ত আছে চীনা কোম্পানি। ২০১৩ সালের ডিসেম্বর মাসে এস আলম গ্রুপ সেপকো ইলেকট্রিক পাওয়ার কনস্ট্রাকশন নামে একটি চীনা কোম্পানির সাথে এই কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার জন্য চুক্তি স্বাক্ষর করে। এই বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি…বিস্তারিত

কিউবায় যুক্তরাষ্ট্র: কে কাকে বদলাবে?

কিউবায় যুক্তরাষ্ট্র: কে কাকে বদলাবে?২৩ মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা কিউবায় তিন দিনের সফর শেষ করলেন। ১৯৫৯ সালের পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত অবরোধ ও বৈরিতা অকার্যকর হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র এখন সেই পথ পরিত্যাগ করতে চায় বলে জানিয়েছিলেন ওবামা। সেই ধারায় কিউবা-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ধারাবাহিক প্রচেষ্টার ফসল এই সফর।অনেকেই বলছেন, এর মধ্য দিয়ে কিউবার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের আধিপত্য প্রতিষ্ঠার পথ সুগম হলো। এখানে বলা দরকার, কিউবা সব সময়ই সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে চেয়েছে, দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য…বিস্তারিত

Page 9 of 25