গণজাগরণ আন্দোলন কি নতুন পর্বে প্রবেশ করছে?

দুইমাস শেষ হবার আগেই সরকার গণজাগরণ মঞ্চের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। প্রথমে উচ্ছসিত থাকলেও গণজাগরণ মঞ্চের বর্তমান গতিবিধি নিয়ে সরকার বিব্রত ও ক্ষুব্ধ। এই মঞ্চ বন্ধ করে দেবারও চেষ্টা সরকার এখন করছে বলে সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যে জানা যায় (কালের কন্ঠ, ১ এপ্রিল ২০১৩; প্রথম আলো, ২ এপ্রিল ২০১৩)। এর মাধ্যমে বিএনপি জাতীয় পার্টি জামায়াত হেফাজতে ইসলামের দাবিই সরকার পূরণ করতে যাচ্ছে।এরমধ্যে মঞ্চের প্রধান কোনো দাবি পূরণ না হলেও ১ এপ্রিল রাতে…বিস্তারিত

এই নৈরাজ্যের অবসান হবে কিভাবে?

একটি ভয়ংকর অনিশ্চয়তা বা নিরাপত্তাহীনতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছি আমরা। মনে হচ্ছে এই পরিস্থিতি কারও ঠেকানোর উপায় নেই। বড় দলগুলো দেশকে নৈরাজ্য আর সহিংসতায় ডুবিয়ে দিতে বদ্ধপরিকর। প্রতিটি মানুষ দিনযাপন করছেন আতংকের মধ্যে। সবচেয়ে বড় বিপদজনক বিষয় হলো, দিনশেষে কোনো আলোর দিশা পাওয়া যাচ্ছে না। কেউ বলতে পারছে না এই নৈরাজ্যের অবসান হবে কবে, কীভাবে?স্বাধীনতার পর থেকে ৪২ বছর পার হলো। মুক্তিযুদ্ধের কথা, তার চেতনার কথা আমরা সবসময় শুনি। কিন্তু…বিস্তারিত

অসংখ্য জীবনের জন্য ছিলো চাবেস-এর জীবন

অসংখ্য জীবনের জন্য ছিলো চাবেস-এর জীবনউগো চাবেস(প্রচলিত উচ্চারণ হুগো শ্যাভেজ)-এর সঙ্গে আমার দেখা হয়েছে দুবার। বেনেসুয়েলা( প্রচলিত উচ্চারণ ভেনেজুয়েলা)র রাজধানী কারাকাসে। একবার আমাদের সঙ্গে বিশ্বরাজনীতি, অর্থনৈতিক সংকট, বলিভারিয়ান বিপ্লব, বিশ্বের একুশ শতকের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন নিয়ে মতবিনিময় সভায়। এই সভাটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল ৫ ঘন্টারও বেশি সময় ধরে। আরেকবার কারাকাস শহরের বিভিন্ন অংশে শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে গড়ে ওঠা কমিউনিটি কাউন্সিলের প্রতিনিধি সভায়, তিনি সেখানে আমাদের কয়েকজনকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।প্রথমটি অনুষ্ঠিত হল আলবা কারাকাস হোটেলে আর দ্বিতীয়টি শতবর্ষ পুরনো…বিস্তারিত

তরুণদের মূলধারা

১৯৭১-এর যুদ্ধাপরাধীদের বর্বরতা তো মাত্র ৪২ বছরের আগের ব্যাপার, ২৫০ বছর আগের মীরজাফর তো এখনো জীবন্ত। মীরজাফরের বিচার হয়নি, হয়তো সে জন্যই তার প্রতি ঘৃণা প্রতিমুহূর্তে পুনরুৎপাদিত হচ্ছে, কেউ জাতীয় স্বার্থবিরোধী ভূমিকায় অবতীর্ণ হলে মানুষ খুব সহজেই তাকে বুঝছে মীরজাফর হিসেবে। এখন রাজাকার শব্দটিও তেমন। যারাই দেশ ও দেশের মানুষের বিপক্ষে দাঁড়াবে, তার নামের সঙ্গেই এখন যুক্ত হবে রাজাকার, কিংবা নব্য রাজাকার। এভাবেই মানুষ তার শত্রু-মিত্র শনাক্ত করে, পরম্পরায় সামষ্টিক…বিস্তারিত

সুন্দরবন থেকে বঙ্গোপসাগর

অন্য বহু দেশের তুলনায় বাংলাদেশের অনেকগুলো বিশেষ শক্তির দিক আছে। উর্বর তিন ফসলি জমি, ভূগর্ভস্থ ও ভূউপরিস্থ বিশাল পানিসম্পদ, নদী-নালা, খাল-বিল, ঘন জনবসতি—সবই আমাদের সম্পদ, যা অনেকের নেই। এর বাইরেও আছে সুন্দরবনের মতো অসংখ্য প্রাণের সমষ্টি এক মহাপ্রাণ। অসাধারণ জীববৈচিত্র্য দিয়ে তা সারা দেশকে সমৃদ্ধ করে, যা লাখ লাখ মানুষের জীবিকার সংস্থান করে, আবার প্রতিটি প্রাকৃতিক দুর্যোগে লাখ লাখ মানুষকে বাঁচায়। আমাদের আরও আছে বঙ্গোপসাগর। স্থলভাগের তুলনায় দ্বিগুণের বেশি আয়তনের…বিস্তারিত

মানুষের বিভেদ ও ঐক্য– সাম্প্রদায়িকতা প্রসঙ্গ

মানুষ তার জীবন যাপন করে অনেকের মধ্যে, অনেকের সঙ্গে। জীবন যাপন জীবিকা অর্জন, তার ভালো লাগা মন্দ লাগা, তার ঠিক-বেঠিক বোধ, নিজেকে নিয়ে অন্যকে নিয়ে তার ভাবনা, আনন্দ বেদনার অভিব্যক্তি, সৌন্দর্যবোধ, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ চিন্তা, খাদ্য সবই তার জীবনের পরিচয়, তার সংস্কৃতি।মানুষের তো অনেক রকম পরিচয় থাকে। ভাষা বা জাতিগত নৃতাত্ত্বিক পরিচয় দিয়ে তার একটি সম্প্রদায়গত অবস্থান তৈরি হয়। আবার যে ধর্মীয় পরিবারে তার জন্ম তা দিয়ে সম্প্রদায়গত আরেকটি পরিচয়…বিস্তারিত

আইএমএফ মডেল ও লুটেরা গোষ্ঠীর স্বার্থ এক জায়গায় মেশে

আইএমএফ মডেল ও লুটেরা গোষ্ঠীর স্বার্থ এক জায়গায় মেশেজনমত ও যুক্তির বিরুদ্ধে গিয়ে, বিকল্প সমাধান চেষ্টা না করে বছরের শুরুতে (৩ জানুয়ারি ২০১৩ মধ্যরাত) আবারো তেলের দামবৃদ্ধি করা হলো। বাজেট প্রক্রিয়াকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে, সরকার প্রতিষ্ঠিত এনার্জি রেগুলেটরী কমিশনকে হয় পাশ কাটিয়ে, নয়তো প্রভাবিত করে অযৌক্তিকভাবে তেল, গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম উপর্যুপরি বৃদ্ধির ফলাফল সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষকে সরাসরি আক্রমণ করবার শামিল। এসব সিদ্ধান্তে কতিপয় ব্যক্তি ও গোষ্ঠী খুবই লাভবান হয় সন্দেহ নেই, কিন্তু জনগণের ওপর বহুমাত্রিক বোঝা তৈরি হয়। পণ্য…বিস্তারিত

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দ্রুত শেষ করুন

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দ্রুত শেষ করুনযুদ্ধকালে নিরস্ত্র নারী-পুরুষ-শিশু-বৃদ্ধের ওপর সশস্ত্র দখলদার বাহিনীর আক্রমণ, হত্যা, অগ্নিসংযোগ, ধর্ষণ ও নির্যাতনই যুদ্ধাপরাধ। ১৯৭১ সালের বাংলাদেশে এ রকম যুদ্ধাপরাধ ঘটেছে অসংখ্য। মূল যুদ্ধাপরাধী পাকিস্তান সেনাবাহিনীর লোকজন পার পেয়ে গেছে প্রথমেই। স্বাধীনতার পর ‘দালাল আইন’ করে এই দেশি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কার্যক্রম শুরু হয়। সে সময় এই আইনে বেশ কিছু রাজাকার ও আলবদর নেতা আটক হয়, বিচারও হয় কারও কারও। অন্যদিকে, তখন এই আইনের অপপ্রয়োগ নিয়েও অভিযোগ ওঠে। একপর্যায়ে ১৯৭৩ সালে…বিস্তারিত

মওলানা ও ভাসানীর সম্মিলন

মওলানা ও ভাসানীর সম্মিলনমওলানা ভাসানী বলে যাকে আমরা চিনি সে ব্যক্তির প্রকৃত নাম তা নয়। তাঁর নামে এই দুই শব্দের কোনোটিই ছিল না। মওলানা ও ভাসানী এ দুটো শব্দই তাঁর অর্জিত পদবী বা বিশেষণ। মওলানা ছিল তাঁর ধর্মবিশ্বাস ও চর্চার পরিচয়, আর ভাসানী ছিল সংগ্রাম ও বিদ্রোহের স্নারক। তাঁর জীবন ও জীবনের কাজ এমনভাবে দাঁড়িয়েছিল যাতে পদবী আর বিশেষণের আড়ালে তাঁর আসল নামই হারিয়ে গেছে। আসলে তাঁর নাম ছিল আবদুল হামিদ খান। ডাক…বিস্তারিত

আমরা কেন বিদ্যুতের বেশি দাম দেব?

সব যুক্তি তথ্য জনমত অগ্রাহ্য করে সরকার বারবার বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েই যাচ্ছে। এই দাম বাড়ানোর পক্ষে আছে বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ আর বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত দখলে নিতে তৎপর দেশি-বিদেশি গোষ্ঠী। আর বিপক্ষে সর্বস্তরের মানুষ। কার ভোটে সরকার ক্ষমতায় যায়, আর কাদের কথায় চলে? জনগণের কাছ থেকে ভোট নেওয়ার সময় এই সরকারের প্রতিশ্রুতি ছিল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, সন্ত্রাস দমন, দ্রব্যমূল্য হ্রাস। এগুলোর কোনোটিতেই সরকারের দক্ষতার পরিচয় পাওয়া গেল না। আগের সরকারের ধারাবাহিকতায় ক্রসফায়ার,…বিস্তারিত

Page 25 of 27