রানা প্লাজা ধসের ৪ বছর: বেঁচে থাকার লড়াই চলছেই

প্রায় চার দশক ধরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়া-আসার পথে আমাকে সবসময়ই সাভার পার হয়ে যেতে হলেও বিশ্বব্যাপী কুখ্যাত হওয়ার আগ পর্যন্ত ‘রানা প্লাজা’ নামের ওই দালানটি কখনো খেয়াল করিনি। গত দুই দশকে গাবতলী থেকে সাভারের পথে পরিবর্তন ঘটেছে বিস্তর। পরিবেশগতভাবে-প্রতিকূল ‘উন্নয়ন’ এখন চোখেই দেখা যায়। নদী ও খালগুলো প্রায়ই বিলুপ্ত হয়ে গেছে, অবশিষ্ট পানিও দূষিত ও বিষাক্ত। বাতাসে শ্বাস নেয়া কঠিন। রাস্তার দুই ধারে এখন উঁচু উঁচু দালান, কারখানা ও শপিং…বিস্তারিত

The struggle continues

I have known the site of Rana Plaza in Savar for almost four decades now. I have to cross Savar to and from the Jahangirnagar campus every day but never noticed the building that later became infamous worldwide, i.e. Rana Plaza. So many changes have taken place here in the last two decades. Rivers and canals have almost disappeared, the remaining water bodies have turned ugly and poisonous. Instead the…বিস্তারিত

আমরাও ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্ব চাই

আমরাও ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্ব চাইগত নভেম্বরে দিল্লিতে গিয়েছিলাম সেখানে প্রতিষ্ঠিত সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রবন্ধ পাঠ করতে। সে সময় দিল্লির বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তির সঙ্গে রামপালে সুন্দরবনবিনাশী কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়েও আলোচনা হয়। এর মধ্যে ভারতীয় পার্লামেন্টের কয়েকজন এমপি এবং সাবেক মন্ত্রীও ছিলেন। তাঁরা কেউ–ই ভারত সরকারের এই উদ্যোগকে সমর্থন করেননি, বরং অনেকেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে এই প্রকল্প বাতিলে সক্রিয় ভূমিকা নেওয়ার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন। আগে থেকে অনেকেই কাজ করছেনও।যেমন এর আগে ১৮ অক্টোবরে…বিস্তারিত

ঢাকা মহানগরী বাসযোগ্য করতে হলে...

ঢাকা মহানগরী বাসযোগ্য করতে হলে...
যখন ‘উন্নয়ন’-এর বিলবোর্ড আর প্রচারণায় ভেসে যাচ্ছে দেশ তখন আন্তর্জাতিক জরিপ জানিয়েছে, ঢাকা মহানগরীর বায়ুদূষণ বিশ্বের দ্বিতীয় নিকৃষ্টতম। শুধু বায়ুদূষণ নয়, পানিদূষণ, দুর্ঘটনা, আশ্রয়হীন মানুষ, যানজট, নিরাপত্তাহীনতা— সব দিক থেকেই ঢাকা মহানগরী বিশ্বের নিকৃষ্ট শহরগুলোর সঙ্গে এখন পাল্লা দিচ্ছে। বোধশক্তিসম্পন্ন সবাই স্বীকার করবেন যে, ঢাকা শহর বিশ্বের অন্যতম অনিরাপদ শহর, বিশেষত নারী ও স্বল্প আয়ের মানুষদের জন্য শত্রুভাবাপন্ন। নগরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়িত্ব যাদের ওপর, তারাই মানুষের সবচেয়ে বেশি ভয়ের…
বিস্তারিত

সর্বজনের বোঝা কিছুজনের লাভ

জনগণকে জিম্মি করে বৃহৎ সিলিন্ডার ব্যবসায়ীদের ব্যবসা বাড়ানোর জন্য দুটি ঘটনা দরকার ছিল: এক. বিভিন্ন স্থানে গ্যাসের কৃত্রিম সংকট তৈরি এবং দুই. গ্যাসের দাম বাড়ানো। দুটি কাজই করা হয়েছে। দামের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) নামের একটি প্রতিষ্ঠান আছে। বারবারই গণশুনানি করা হয়, শুনানিতে যা-ই প্রমাণিত হোক না কেন, সরকারের ইচ্ছেমতো গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়। এবারও গণশুনানিতে প্রমাণিত হয়েছে গ্যাসের দাম বাড়ানোর কোনো যুক্তি নেই,…বিস্তারিত

YES to Sundarbans NO to projects of environmental destruction

If we say yes to the Sundarbans, then we must say no to the commercial projects harmful for its survival. Whether it is a power plant or any other commercial activity, whether it is foreign investment (FDI) or local investment, whether it is investment from India, or China or the US or any other country, even from Bangladesh, whether it increases the GDP or generates power – this position cannot…বিস্তারিত

সমস্যার আরেক নাম ‘ভিআইপি’

‘আমারে চিনস?’ বাংলাদেশে এটা একটা পরিচিত বাক্য। কাউকে লাইনে দাঁড়াতে বললে, কাউকে ট্রাফিক আইন মানতে বললে, কারও অন্যায়ের প্রতিবাদ করলে, কারও জবরদখল সরাতে বললে এ রকম কথা শোনা যায়। কারা এ রকম বলেন? যাঁরা ক্ষমতার ভারে আক্রান্ত। এটা হতে পারেন ক্ষমতাবান ভিআইপি কেউ, হতে পারেন ক্ষমতার ছোঁয়া লাগা তাঁদের ভাই, ভাতিজা, বন্ধু বা বন্ধুর ভাই কিংবা চেলা-শাগরেদ। পুলিশ, র্যাব, আইন, নীতি, শৃঙ্খলা—সবই তাঁদের ক্ষমতার অধীন। সর্বজনের টাকা তাঁদের টাকা।এটা…
বিস্তারিত

বন ও নদী বাঁচানোর যুদ্ধ

মানুষ ছাড়া বন বাঁচে বন ছাড়া মানুষ বাঁচে না। মানুষ ছাড়া নদী বাঁচে পানি ছাড়া মানুষ বাঁচে না।। তাই মানুষকে বাঁচাতেই বাংলাদেশের রক্ষাপ্রাচীর সুন্দরবন আর তার নদী বাঁচাতে হবে।বন বাঁচানোর জন্য সাধারণ ধর্মঘট বা হরতালের পূর্বদৃষ্টান্ত আছে কি না জানি না, তবে এই ইতিহাস বাংলাদেশের মানুষই তৈরি করছে। করবেই তো, এই দেশ সেই মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে সৃষ্ট, যার একটি প্রাণের গান ছিল ‘মোরা একটি ফুলকে বাঁচাবো বলে যুদ্ধ করি’। এখন সেই জাতির গান ‘মোরা…বিস্তারিত

শিক্ষার্থীদের ওপর বাণিজ্য আর পরীক্ষার চাপ

শিক্ষার্থীদের ওপর বাণিজ্য আর পরীক্ষার চাপ
পাঠ্যপুস্তক নিয়ে সর্বশেষ যে কেলেঙ্কারি হলো তার দুটো দিক আছে। একটি ছাপার ত্রুটি নিম্নমান ছাড়াও অমার্জনীয় মাত্রার ভুল। আরেকটি হলো, পাঠ্যসূচিতে উল্লেখযোগ্য মাত্রার পরিবর্তন। প্রথমটিতে প্রমাণিত হয় এসব পাঠ্যপুস্তক লেখা, সম্পাদনা ও মুদ্রণের দায়িত্বে যাঁরা আছেন, তাঁদের মধ্যে অযোগ্য ও দায়িত্বহীন লোকজন অনেক, তাঁদের নিয়োগের প্রক্রিয়ায় ব্যাপকমাত্রায় অনিয়ম বা বাণিজ্য বা অন্ধ দলীয়করণ ছাড়া এটা সম্ভব নয়। আর দ্বিতীয়টিতে প্রমাণ হয় সরকার তার রাজনৈতিক কৌশলের কারণে স্কুলের পাঠ্যবইয়েও কিছু মৌলিক…
বিস্তারিত

উন্নয়ন না সহিংসতা

‘উন্নয়ন’ শব্দটি সবার জন্য একই অর্থ বহন করে না। উন্নয়ন কি সবার জীবনকে সমৃদ্ধ করবে, নাকি বহুজনের জীবন ও প্রকৃতির বিনিময়ে কতিপয়কে দানব বানাবে— এটি নির্ভর করে উন্নয়নের ধরন কেমন আর তার গতিপথ কারা নির্ধারণ করছে তার ওপর। পুঁজির স্বৈরশাসনের মধ্যে যখন আমরা বাস করি, তখন যেকোনো উপায়ে পুঁজির সংবর্ধনকেই ‘উন্নয়ন’ নাম দিয়ে আমাদের সামনে হাজির করা হয়। তার পরিণতি যা-ই হোক না কেন, প্রচারণার আচ্ছন্নতার কারণে উন্নয়নের সঙ্গে ধ্বংস…বিস্তারিত

Page 1 of 20