ইউনেসকো নয়, মূল দায় সরকারের

সুন্দরবনবিনাশী রামপাল প্রকল্প নিয়ে ইউনেসকোর আপত্তি-অনাপত্তি নিয়ে বহুদিন থেকেই দেশে-বিদেশে আলোচনা হচ্ছে। ইউনেসকো জাতিসংঘের একটি প্রতিষ্ঠান, পুরো নাম জাতিসংঘ শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থা। ১৯৪৫ সালের নভেম্বরে লন্ডন সম্মেলনে ইউনেসকো প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত হয়। আর এর একটি শাখা সংস্থা হিসেবে বিশ্ব ঐতিহ্য কমিটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭৬ সালে। এর দায়িত্ব নির্ধারিত হয় বিশ্বের সব দেশে যেসব প্রাকৃতিক, ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক সম্পদ সারা বিশ্বের মানুষের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, সেগুলো চিহ্নিত করা ও তার সংরক্ষণে…বিস্তারিত

সুন্দরবনবিনাশী সব প্রকল্প বাতিল করুন

৩০ জুন থেকে আজারবাইজানের বাকুতে ইউনেস্কোর যে অধিবেশন শুরু হয়েছে, তা বাংলাদেশের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই অধিবেশনে সিদ্ধান্ত হবে, প্রাকৃতিক বিশ্বঐতিহ্য হিসেবে চিহ্নিত বাংলাদেশের সুন্দরবনকে বিপদাপন্ন হিসেবে চিহ্নিত করা হবে কি-না। এভাবে চিহ্নিত করলে বিশ্বদরবারে এটাই প্রমাণিত হবে যে, এ দেশের মানুষ দেশের একমাত্র প্রাকৃতিক বিশ্বঐতিহ্য রক্ষায় সমর্থ নয়। প্রমাণিত হবে, এ দেশের সরকারের কাছে বিশ্বঐতিহ্য সুন্দরবন রক্ষার চেয়ে ভারত ও বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে ব্যবসা দেওয়া বেশি গুরুত্বপূর্ণ।…বিস্তারিত

ঋণগ্রস্ততার দুষ্টচক্র কার জন্য

অর্থনীতির নানা ঘাত-প্রতিঘাতও নিছক অর্থনীতির বিষয় নয়, এটা সমাজের শক্তি সমাবেশ ও ক্ষমতা কাঠামোর সঙ্গে সম্পর্কিত। বর্তমানে যেভাবে চলছে, অনেকের উৎপাদিত সম্পদ কিছুজনের হাতে স্থানান্তরিত হওয়ার প্রক্রিয়া কিংবা কিছুজনের স্বার্থে বহুজনের জীবন বিপন্ন করা কোনো স্বয়ংক্রিয় ঘটনা নয়। তা নির্দিষ্ট নীতি, পরিকল্পনা ও রাষ্ট্রের নানা কর্মকাণ্ডের ফল। বাংলাদেশে সরকার তার নীতিদর্শন অনুযায়ী দেশে লুম্পেন পুঁজিপতি বিকাশে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে। সর্বজনের সম্পদ কিছুজনের হাতে পৌঁছানো তাই সরকার দায়িত্ব হিসেবে নিয়েছে। বর্তমান…বিস্তারিত

কেন কর দেব

সম্প্রতি ঢাকার জুরাইনসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষ বিশুদ্ধ পানি পাওয়ার আন্দোলনে দাবি তুলেছেন- 'বিষের বদলে পানি চাই, বিষের জন্য বিল নাই।' তারা তথ্যপ্রমাণ দিয়ে দেখিয়েছেন ওয়াসার পানি কী মাত্রায় বিষাক্ত এবং তার জন্য মানুষের দৈনন্দিন জীবন কীভাবে বিপর্যস্ত হচ্ছে, অসুখ-বিসুখ বাড়ছে, জীবন বিপন্ন হচ্ছে। বস্তুত এটা শুধু জুরাইনের নয়; ঢাকার প্রায় সব অঞ্চলেই পানি অনিরাপদ। অথচ মানুষ বিল দিচ্ছে বিশুদ্ধ, নিরাপদ পানির জন্য। তাই নিরাপদ পানি না পেলে বিল দেওয়া বন্ধ…বিস্তারিত

‘উন্নয়নের’ রোল মডেল ও বাজেট

উন্নয়ন বলতে বোঝায় বিদ্যমান সম্পদ ও সক্ষমতাকে বাড়ানো, জীবনকে আরও সহজ, আরামদায়ক ও নিরাপদ করা, জ্ঞান বিদ্যা যোগাযোগ বিনোদনের জগৎ প্রসারিত করা। যদি দেখা যায় সম্পদ ও সক্ষমতা আরও বিপর্যস্ত হচ্ছে, যদি দেখা যায় জীবন আরও কঠিন, অনিশ্চিত এবং ঝুঁকিপূর্ণ হচ্ছে, যদি দেখা যায় চারপাশের জগৎ আরও বিপর্যস্ত হচ্ছে, তাহলে তাকে কি আমরা উন্নয়ন বলতে পারি? সরকারের মুখে এখন হরদম শুনি ‘বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল’, আর চোখের সামনে দেখি নিমতলী-চুড়িহাট্টা…বিস্তারিত

ফ্রিদা কাহলোর শহরে

'মেক্সিকো সিটি’ নামে পরিচিত এই শহরের প্রতিষ্ঠা স্পেনীয় দখলদারদের হাতে। এই শহরের পাশেই ২৫ মাইল দূরে দখলপূর্ব প্রাচীন শহর তিওতিহুয়াকান (ঈশ্বরের জন্মভূমি) মেক্সিকোর প্রাচীন সভ্যতাকেন্দ্র। এখানে সূর্য আর চন্দ্র দেবতার উদ্দেশে নির্মিত পিরামিডগুলো সে সময়ের উন্নতমানের স্থাপত্য, নির্মাণশৈলী ও অর্থনৈতিক শক্তি নির্দেশ করে। প্রাচীন সভ্যতার স্মৃতি মুছে ফেলতে স্পেনীয়রা পত্তন করে নতুন শহর। মেক্সিকোজুড়ে দখলপূর্ব আর পরবর্তী শৈল্পিক নির্মাণের সহাবস্থান। মেক্সিকো সিটিতে দর্শনীয় ভাস্কর্য আর স্থাপত্যের ছড়াছড়ি।প্রায় ১০ হাজার বছরের…বিস্তারিত

পাটশিল্প কেন রুগ্‌ণ হলো

পাটশিল্পে লোকসানের সব কারণ অব্যাহত রেখে রুগ্‌ণ অবস্থা বাড়ানো হয়েছে। এক পর্যায়ে মজুরি দেওয়া বন্ধ, লে-অফ ঘোষণা, হুমকি ইত্যাদির মধ্য দিয়ে একের পর এক পাটকলগুলো বন্ধ করা হয়েছে। এই ধারাতেই ২০০২ সালের ৩০ জুন আদমজী বন্ধ হয়েছে। খুলনা-যশোর অঞ্চলেও একই প্রক্রিয়া চলল। একদিকে যখন লাখো মানুষ কাজ থেকে ছিটকে পড়েছে, তখন প্রশংসার ঝর্ণা বইতে থাকল অন্যদিকে। ১৬ জুলাই ২০০২ দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের জন্য বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট মিকো নিশিমিজু বিদেশ থেকে…বিস্তারিত

প্রফেসর সাহেব

ছোটবেলা থেকে আমরা তাঁকে এই নামেই চিনি। কেননা তাঁকে আমাদের দেখা-জানা সব লোকজন ‘প্রফেসর সাহেব’ নামেই ডাকতেন। বেশ কয়েকটি কলেজে শিক্ষকতা সূত্রে তাঁর এ পরিচয় তৈরি হয়। ছোটবেলায় রাগী, গম্ভীর ভাবমূর্তির এ মানুষের কাছাকাছি যাওয়ার সাহস আমাদের ছিল না। তিনি আমাদের পিতা প্রফেসর মো. আজগর আলী (১৯২৭-২০০৩)। বিভিন্ন সময়ে তিনি নিজের জীবনের টুকরো টুকরো অভিজ্ঞতার কথা লিখেছেন, মৃত্যুর পর তাঁর সেসব নোটবই আমাদের হাতে আসে। পূর্ব বাংলার এক প্রত্যন্ত গ্রামে…বিস্তারিত

বাংলাদেশে পাটশিল্প বিনাশের দায় কার

বছরের পর বছর পাটকল শ্রমিকদের দফায় দফায় রাস্তায় আসতে হচ্ছে নিজেদের পাওনা মজুরির দাবিতে। বারবার তাদের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও তা ভঙ্গ করা হয়েছে। গত কয়দিন ধরে ঢাকা, খুলনা, চট্টগ্রামে হাজার হাজার অভুক্ত শ্রমিক রাস্তায়। নতুন বেতন স্কেলে কর্মকর্তারা বেতন নিচ্ছেন; কিন্তু শ্রমিকদের জন্য নতুন মজুরি ঘোষণা তো দূরের কথা, বকেয়া মজুরিই শোধ করা হচ্ছে না। অন্যদিকে পাটকলগুলোতে লোকসানের বোঝা বাড়ছেই। কেন এই পরিস্থিতি? বাংলাদেশে পাটশিল্পের প্রধান কেন্দ্রগুলোর একটি খুলনা। খালিশপুর…বিস্তারিত

Workers’ cry in workers’ land

Bangladesh is a workers’ land. More than seven million people are working here as manufacturing workers, nearly nine million in hotels and tea shops, more than four million in transport, two million in construction and more than 20 million women and men are actively engaged in agriculture. With their unemployed dependents, they constitute more than 90 percent of the population, and yet they share less than 20 per cent of…বিস্তারিত

Page 1 of 25